logo
   প্রচ্ছদ  -   লাইফ স্টাইল

ক্যান্সার ধরা পড়বে নিঃশ্বাস পরীক্ষার মাধ্যমে
Posted on Jan 07, 2019 12:12:23 PM.

ক্যান্সার ধরা পড়বে নিঃশ্বাস পরীক্ষার মাধ্যমে

ক্যান্সার সনাক্তের নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা। চিকিৎসকেরা নতুন এক পদ্ধতির মাধ্যমে কেবল নিঃশ্বাস পরীক্ষা করেই ক্যান্সার শনাক্ত করতে পারবেন। প্রাথমিক অবস্থায় পরীক্ষামূলকভাবে এর কার্যকারিতা এখন পরীক্ষা করে দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। এই পরীক্ষার মাধ্যমে যুক্তরাজ্যের ক্যামব্রিজের ক্যান্সার গবেষকেরা দেখতে চান, কেবলমাত্র নিঃশ্বাসের অনুসমূহ পরীক্ষা করে কয়েক ধরণের ক্যান্সারের প্রাথমিক লক্ষণ শনাক্ত করা যায় কি না।


এই পদ্ধতি যদি সফল হয়, তাহলে চিকিৎসকেরা শুরুতেই নির্ধারণ করতে পারবেন ওই রোগীর আরো বিশদ পরীক্ষানিরীক্ষার দরকার আছে কি না। গবেষকেরা দেড় হাজার মানুষের নিঃশ্বাসের নমুনা সংগ্রহ করবেন, এর মধ্যে ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীও রয়েছেন। নিঃশ্বাস ছাড়াও একজন ব্যক্তির রক্তক ও মূত্র পরীক্ষার মাধ্যমেও ক্যান্সার প্রাথমিক ধাপেই শনাক্ত করা যাবে। এর ফলে ক্যান্সারে আক্রান্তদের মৃত্যুর হার অনেকটা কমে যাবে।

নিঃশ্বাসের বায়োপসি করার মধ্য দিয়ে নিঃশ্বাস পরীক্ষা করে মুখের গন্ধের এই প্রক্রিয়াটি চিহ্নিত করার চেষ্টা করছেন গবেষক দল। নতুন এই পদ্ধতি মাত্র পরীক্ষা করে দেখা শুরু হয়েছে। ফলে এর সফলতা নিয়ে নিশ্চিত কিছু বলতে হলে কয়েক বছর অপেক্ষা করতে হবে বলে জানিয়েছে বিশেষজ্ঞরা।

ইতিমধ্যেই যেসব মানুষের পাকস্থলীতে ক্যান্সার হবার পর প্রোস্টেট, কিডনী, ব্লাডার, লিভার এবং প্যানক্রিয়াসে তা ছড়িয়ে পড়েছে, এমন মানুষের একটি অংশ এই পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। এদের বাইরেও সুস্থ ও স্বাভাবিক মানুষেরা অংশ নিচ্ছেন এই গবেষণায়।

এক অর্থে ক্যান্সার চিকিৎসার ব্যয় কমবে। কারণ কারো শরীরে যদি ক্যান্সারের আভাস পাওয়া যায়, আর সেটি আগে থেকে শণাক্ত করা যায়, তাহলে খুব দ্রুত তার চিকিৎসা শুরু করা যাবে। এছাড়া একটি মাত্র পরীক্ষা কিংবা খুব সাধারণ পরীক্ষানিরীক্ষার মাধ্যমে ক্যান্সার শনাক্ত করা গেলে, সেটি পরবর্তী ধাপগুলোতে সাশ্রয় সম্ভব হয়।

মানুষের যত রকম ক্যান্সার হয় বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই শরীর সে সম্পর্কে কোন না কোন পূর্বসংকেত দেয়। কিছু লক্ষণ দেখে আপনি সন্দেহ করতে পারবেন যে আপনার দেহে হয়তো ক্যান্সার হয়ে থাকতে পারে। চিকিৎসকেরা বলছেন সেই সংকেত মূলত সাতটি।

  • কোন বিশেষ কারণ ছাড়াই হঠাৎ শরীরের ওজন কমতে শুরু করেছে।
  • হজম ও মল-মূত্র ত্যাগের অভ্যাসে কোন ধরনের পরিবর্তন হওয়া। যেমন ডাইরিয়া বা কোষ্ঠকাঠিন্য। যেমন আপনার হয়ত কোষ্ঠকাঠিন্য নেই কিন্তু সেটিই হচ্ছে ইদানীং। অথবা পাতলা পায়খানা।
  • সারাক্ষণ জ্বর বা খুসখুসে কাশি যা ঠিক যাচ্ছেই না।
  • শরীরের কোথাও কোন পিণ্ড বা চাকার উপস্থিতি।
  • ভাঙা কণ্ঠস্বর যা কোন চিকিৎসায় ভালো হচ্ছে না।
  • তিল বা আঁচিলের সুস্পষ্ট পরিবর্তন।
  • শরীরের কোন অঙ্গপ্রত্যঙ্গ থেকে অস্বাভাবিক রক্তক্ষরণ।

মোটা দাগে এই উপসর্গ বা শরীরের সংকেতের কোন একটি যদি দুই থেকে তিন সপ্তাহ ধরে থাকে আর সেগুলোর সাধারণ চিকিৎসায় না কমে যায়- তবেই ক্যান্সার শব্দটি মাথায় রেখে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।




  এই বিভাগ থেকে আরও সংবাদ

   কিডনি সুস্থ রাখতে যা খাবেন, যা খাবেন না
   দুপুরে খাওয়ার পরে যে কাজগুলো করবেন না
   বরইয়ের টক আচার তৈরির রেসিপি
   কুকুরে কামড়ালে কী করবেন?
   হঠাৎ জ্বর? জেনে নিন দ্রুত সুস্থ হওয়ার উপায়
   তেঁতুলের এই উপকারিতাগুলো জানতেন?
   হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা কীভাবে বুঝবেন?
   সংসারে শান্তি বজায় রাখার উপায়
   যে খাবার কাঁচা খেলে ক্ষতি
   সুস্বাস্থ্য রক্ষায় সাত ধরনের বাদাম
   সুস্বাস্থ্য রক্ষায় সাত ধরনের বাদাম
   যেসব ফলের রস খেলে ত্বক ভালো থাকে
   ওজন কমানোর কার্যকর উপায় কোনটি?
   এই ৪ লক্ষণে বুঝবেন রোগ-জীবাণুতে ভরা শরীর!
   ত্বকের মৃত কোষ দূর করুন
   প্রতিদিন খেজুর খাওয়ার ১০ উপকার
   ব্রণের সমস্যা? জেনে নিন একদিনেই দূর করার উপায়
   কাপড়ের কঠিন দাগ তোলার সহজ কিছু উপায়
   যে খাবারগুলো ফ্রিজে রাখবেন না
   সকালের নাস্তায় যেসব খাবার খাবেন না
   নাক টিকালো করার উপায়
   পুরুষের চুল পড়া রোধে করণীয়
   অ্যাজমা থেকে বাঁচার উপায়
   যেসব খাবার চুল পড়া কমাবে
   ফুচকা তৈরি করুন ঘরেই
   মাংস দ্রুত সেদ্ধ করার উপায়
   এনার্জি ড্রিংক পান করলে আসলে যা হয়
   হাঁস মুরগি মাছে বিষাক্ত পদার্থ
   মাছ মাংসে বিষ, প্রমাণ মিলেছে
   খাওয়ার পর যা করলে হবে মহাবিপদ


  পুরনো সংখ্যা