logo
   প্রচ্ছদ  -   আন্তর্জাতিক

সিরিয়া থেকে মার্কিন জোটের সেনা প্রত্যাহার শুরু
Posted on Jan 12, 2019 10:32:25 AM.

সিরিয়া থেকে মার্কিন জোটের সেনা প্রত্যাহার শুরু

সিরিয়া থেকে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের সেনা প্রত্যাহার শুরু হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আচমকা সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেওয়ার এক মাস না যেতেই এ প্রক্রিয়া শুরু হলো। গতকাল শুক্রবার জোটের এক মুখপাত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে ২০১৪ সাল থেকে লড়াই করছে জোটের সেনারা। তাদের প্রত্যাহার শুরু হলেও কবে নাগাদ এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে, তা এখনো পরিষ্কার নয়। জোটের মুখপাত্র কর্নেল শন রায়ান এক বিবৃতিতে বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘সিজেটিএফ-ওআইআর সেনাদের (জোটের জঙ্গিবিরোধী বাহিনী) সিরিয়া থেকে প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তবে নিরাপত্তার স্বার্থে প্রত্যাহারের স্থান-কাল কিংবা সেনার সংখ্যা আমরা জানাব না।’

যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা ‘সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস’ অবশ্য দাবি করেছে, সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের হাসাকেহ প্রদেশের মেইলান বিমানঘাঁটি থেকে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের সেনাদের প্রত্যাহার করে নেওয়া হচ্ছে। সংস্থাটি এক বিবৃতিতে দাবি করে, ‘গত বৃহস্পতিবারও অল্পসংখ্যক মার্কিন সেনাকে ওই ঘাঁটি থেকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। গত মাসে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার পর সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের এটিই প্রথম ঘটনা।’

সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের আরো কয়েকটি ঘাঁটি রয়েছে। একই ধরনের ঘাঁটি রয়েছে পাশের দেশ ইরাকেও। ট্রাম্প জানিয়েছেন, ইরাকে মার্কিন সেনাদের অবস্থান অব্যাহত থাকবে।

কয়েক দিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দপ্তরের এক কর্মকর্তা এএফপিকে জানান, সিরিয়া থেকে এরই মধ্যে অনেক সামরিক সরঞ্জাম সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

মার্কিন নেতৃত্বাধীন এ জোটে ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের সেনাও আছে। গত মাসের শেষ দিকে ট্রাম্প বলেন, আইএস পরাজিত হয়েছে; এ কারণে মার্কিন সেনাদের আর সিরিয়ায় থাকার প্রয়োজন নেই। অনেকেই তাঁর এ সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেন। কিন্তু ট্রাম্প প্রশাসন এখনো সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে অটল রয়েছে। গত বৃহস্পতিবার কায়রো সফরে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, ‘যত সমালোচনাই হোক, সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত।’

এর কয়েক দিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন অবশ্য সেনা প্রত্যাহারের ক্ষেত্রে দুটি শর্তের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, আইএসের পরাজয় এবং স্থানীয় কুর্দি যোদ্ধাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত হওয়ার পরই সেনা প্রত্যাহার করা হবে। উল্লেখ্য, কুর্দি যোদ্ধারাও সেখানে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের সহযোগী হিসেবে আইএসের বিরুদ্ধে লড়ছে। তুরস্ক চায় না, যুক্তরাষ্ট্র এসব কুর্দি যোদ্ধাদের কোনো ধরনের সহযোগিতা করুক। অন্যদিকে কুর্দি যোদ্ধাদের আশঙ্কা, যেকোনো সময় তাদের বিরুদ্ধে তুরস্ক অভিযান চালাবে। এ অবস্থায় বোল্টনের বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেছিল তুরস্ক।




  এই বিভাগ থেকে আরও সংবাদ

   বিধ্বংসী সাইক্লোনে ১৪০ জনের মৃত্যু
   জিম্বাবুয়েতে ঘূর্ণিঝড়ে নিহত অন্তত ৩১
   ইন্দোনেশিয়ার পাপুয়ায় বন্যায় ৪২ জনের মৃত্যু
   কিউবানদের ভিসার মেয়াদ কমছে যুক্তরাষ্ট্রে
   নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলায় বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড়
   নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলাকারী সন্ত্রাসী রিমান্ডে
   মুম্বাইয়ে ফুটওভার ব্রিজ ধসে পড়ে নিহত ৫
   নিউজিল্যান্ডে মসজিদে বন্দুকধারীর হামলায় নিহত ২৭
   নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলাকারীর ছবি প্রকাশ
   ২৫ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে পালিত হবে ‘বাংলাদেশী ইমিগ্রান্ট ডে’
   ব্রাজিলের একটি স্কুলে বন্দুক হামলায় নিহত ৮
   মেক্সিকোতে বাস থেকে ১৯ অভিবাসন প্রত্যাশীকে অপহরণ
   বিশ্বে ধূমপানের চেয়ে বেশি মৃত্যু হয় বায়ু দূষণে
   ব্রেক্সিট ভোটে আবারো হারলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে
   ১২৫ মিলিয়ন বছর আগের ক্ষুদ্র ডাইনোসরের জীবাশ্ম আবিষ্কার
   বোয়িং ৭৩৭: সিঙ্গাপুরের আকাশসীমায় নিষিদ্ধ
   ভারতে ১১ এপ্রিল থেকে সাত দফায় লোকসভা নির্বাচনের ভোট
   অল্পের জন্য রক্ষা পেল দু’শরও বেশি যাত্রী
   কলম্বিয়ায় বিমান বিধ্বস্তে নিহত ১৪
   বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণ কানে তানাকা
   বিপাকে ইমরান খান
   দক্ষিণ কোরিয়ার মন্ত্রিসভায় পরিবর্তন
   পদত্যাগ করল ফিনল্যান্ড সরকার
   নিন্দার মুখে সৌদি আরব
   মেক্সিকোতে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৫ অভিবাসীর মৃত্যু
   যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে পাকিস্তান এবং ভারত!
   জামিন পেলেন ঘোসন
   পাকিস্তান জুড়ে সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৪
   ট্রাম্প-উনের স্বপ্নের বৈঠক ভেঙে চুরমার
   মারা গেলেন নোবেল বিজয়ী রুশ বিজ্ঞানী আলফেরভ


  পুরনো সংখ্যা