logo
   প্রচ্ছদ  -   অর্থ-বাণিজ্য

অর্থনৈতিক স্বাধীনতার সূচকে সাত ধাপ উন্নতি বাংলাদেশের
Posted on Jan 28, 2019 11:28:27 AM.

অর্থনৈতিক স্বাধীনতার সূচকে সাত ধাপ উন্নতি বাংলাদেশের

গোটা বিশ্বে অর্থনৈতিক স্বাধীনতার দিক থেকে বাংলাদেশের অবস্থান এখন ১২১তম। যুক্তরাষ্ট্রের অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হেরিটেজ ফাউন্ডেশনের প্রকাশিত ২০১৯ সালের তালিকায় সাত ধাপ উন্নতি হয়েছে বাংলাদেশের। 

তাদের দেয়া তথ্যমতে, ২০১৯ সালের বৈশ্বিক অর্থনৈতিক স্বাধীনতার সূচকে ৫৫ দশমিক ৬ শতাংশ স্কোর পেয়েছে বাংলাদেশ।

গত বছরের চেয়ে শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ পয়েন্ট বেশি পেয়ে বাংলাদেশের সাত ধাপ এগিয়ে গেছে। তাছাড়া এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ৪৩টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান এখন ২৭তম। প্রতিষ্ঠানটি তাদের সূচকে জানিয়েছে, বাংলাদেশে সম্পত্তি অধিকার ও সরকারি নিষ্ঠার দিক থেকে এগোলেও পতন ঘটেছে বিনিয়োগ স্বাধীনতা ও রাজস্ব সক্ষমতার।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক চিন্তন গোষ্ঠী হেরিটেজ ফাউন্ডেশন তাদের প্রতিবেদনের বাংলাদেশ অংশে জানিয়েছে, দেশটির গত দুই দশকে বার্ষিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি আনুমানিক ছয় শতাংশ। আর এর পেছনে রয়েছে মূলত ব্যক্তিখাতের খরচ ও স্থায়ী বিনিয়োগের পরিমাণ বৃদ্ধি।

মোট চারটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করে এ তালিকা তৈরি করা হয়েছে। ক্যাটাগরি চারটির মধ্যে রয়েছে, আইনের শাসন, সরকারের আকার, নীতিনির্ধারণের কার্যকারীতা ও মুক্ত বাজার।

আইনের শাসন ক্যাটাগরির সম্পত্তির মালিকানা ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত শাখায় ৩৬ দশমিক ১, বিচার বিভাগের কার্যকারিতা শাখায় ৩৪ দশমিক ৫ ও সরকারের নিষ্ঠা বিভাগে ২৪ দশমিক ৪ পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ।

সরকারের আকার নামক ক্যাটাগরিতে করের বোঝা শাখায় ৭২ দশমিক ৭, সরকারি ব্যয় শাখায় ৯৪ দশমিক ৫ ও রাজস্ব সক্ষমতা শাখায় ৭৭ দশমিক ৬ পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ।

নীতিনির্ধাণের কার্যকারিতা ক্যাটাগরির ব্যাবসায়িক স্বাধীনতা শাখায় ৫০ দশমিক ৯, শ্রমের স্বাধীনতা শাখায় ৬৮ দশমিক ২ মুদ্রানীতি শাখায় ৬৯ দশমিক ৯ পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ।

তাছাড়া মুক্ত বাজার ক্যাটাগরির বাণিজ্য স্বাধীনতা শাখায় বাংলাদেশ পেয়েছে ৬৩ দশমিত ৩, বিনিয়োগ স্বাধীনতা শাখায় ৪৫ ও আর্থিক স্বাধীনতা শাখায় ৩০ পয়েন্ট পেয়েছে।

হেরিটেজ ফাউন্ডেশন প্রতিবছর ‘অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচক’ প্রকাশ করে থাকে। অর্থনৈতিক স্বাধীনতার মাত্রা মূল্যায়নের ক্ষেত্রে আইনের শাসন, সরকারি আয়-ব্যয়ের পরিমাণ, নীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নগত দক্ষতা এবং মুক্ত বাজার অর্থনীতির বৈশিষ্ট্যগুলোকে ভিত্তি করে নম্বর হিসেব করা হয়।

সংস্থাটির প্রণীত ২০১৯ সালের অর্থনৈতিক স্বাধীনতার সূচকে বাংলাদেশের চেয়ে পিছিয়ে আছে ভারত। তালিকায় অর্থনৈতিক স্বাধীনতার সূচকে ভারতের অবস্থান ১২৯তম। ভারতের চেয়েও দুইধাপ নিচে ১৩১তম অবস্থান আছে পাকিস্তান। তাছাড়া নেপালের অবস্থান ১৩৬ ও শ্রীলঙ্কার ১১৫তম। তবে চীনের অবস্থান তালিকায় ১০০তম।

তালিকায় বরাবরের মতো সবার ওপরে রয়েছে হংকং। এরপর রয়েছে সিঙ্গাপুর, নিউজিল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। আর তালিকার নিচের দিকে রয়েছে উত্তর কোরিয়া, কিউবা, ভেনেজুয়েলা, জিম্বাবুয়ে, কঙ্গো আর সুদান।




  এই বিভাগ থেকে আরও সংবাদ

   জুলাই মাসে রেমিট্যান্স এসেছে ১৬০ কোটি ডলার
   কোরবানির পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ
   শুক্র ও শনিবার যেসব এলাকায় খোলা থাকবে ব্যাংক
   সময় বাড়লো অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধনের
   ১০০ টাকার প্রাইজবন্ডের ৯৬তম ড্র অনুষ্ঠিত
   সদ্যসমাপ্ত অর্থবছরে ২ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আয়
   সঞ্চয়পত্রে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত উৎসে কর ৫ শতাংশ
   হজে এবার ৮০০ কোটির ওপরে আয় করবে বিমান
   সি পার্লের মুনাফা বেড়েছে ৫৪ শতাংশ
   ৪ হাজার কোটি ডলারের মাইলফলক ছাড়িয়েছে পণ্য রপ্তানি
   বাণিজ্য ঘাটতি ১৪৬৫ কোটি ডলার
   আমেরিকা-চীন বাণিজ্য যুদ্ধে লাভের সম্ভাবনা বাংলাদেশের
   বাড়ছে সোনার দাম
   ফের বাণিজ্য আলোচনায় বসবে চীন-যুক্তরাষ্ট্র
   বন্ড সুবিধা পাবেন স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা: এনবিআর চেয়ারম্যান
   আমদানি করা গুঁড়ো দুধে ৫০ শতাংশ শুল্ক আরোপের প্রস্তাব
   যেসব পণ্যের দাম বাড়বে ও কমবে
   মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ২ হাজার টাকা বৃদ্ধি
   মন্ত্রিপরিষদে প্রস্তাবিত বাজেট অনুমোদন
   অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামালের প্রথম বাজেট আজ
   স্মার্ট বাজেট নিয়ে বিকেলে আসছেন অর্থমন্ত্রী
   শ্রমিক কল্যাণ তহবিলে লভ্যাংশ জমা দিল গ্রামীণফোন
   ১০০ টাকা মূল্যমানের প্রাইজবন্ডের ড্র অনুষ্ঠিত
   দুই চুলার গ্যাসের দাম ১৪৪০ টাকা করতে চায় তিতাস
   গ্যাসের দাম ১০৩ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব
   নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যে ভ্যাট দিতে হবে না : অর্থমন্ত্রী
   ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে বাংলাদেশের রপ্তানি আয় ৩৬ হাজার ৬৬৮ দশমিক ১৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার
   বাংলাদেশের তিন ব্যাংক নিজস্ব শাখা খুলছে সৌদি আরবে
   বাড়ছে খেলাপি ঋণ
   চুরি হওয়া রিজার্ভের অর্থ উদ্ধার কাজ চলমান রয়েছে : অর্থমন্ত্রী


  পুরনো সংখ্যা