logo
   প্রচ্ছদ  -   অর্থ-বাণিজ্য

সরকারের ৮০ শতাংশ কেনাকাটা ‌হয় ‘ই-জিপিতে
Posted on Jan 09, 2018 01:33:42 PM.

সরকারের ৮০ শতাংশ  কেনাকাটা ‌হয় ‘ই-জিপিতে

ডিজিটাল বাংলাদেশ। সরকারের সব মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সকল কেনা কাটা এখন হচ্চে অনলাইন ই-জিপি টেন্ডারের মাধ্যমে। এর ফলে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান খুব সহজে টেন্ডার দাখিলসহ কাজ পেতে পারে। সেই সাথে জনসাধারণও জানতে পারে সরকার কোন কোন খাতে কত টাকার কেনাকাটা করছে।

বর্তমানে সরকারি কেনাকাটার প্রায় ৮০ শতাংশ এখন ইলেকট্রনিক গভর্নমেন্ট প্রকিউরমেন্ট বা ই-জিপি’র আওতায় এসেছে। অনলাইন ব্যবস্থায় ই-জিপি’র মাধ্যমে ১ শ’ কোটি টাকার বেশি মূল্যের কেনাকাটা ২০১১ সাল থেকে শুরু হয়ে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত এই হারে পৌঁছেছে। খবর বাসস।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের নিরীক্ষা ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট ট্যাকনিকেল ইউনিট (সিপিটিইউ) এর মহাপরিচালক মো. ফারুক হোসেন বাসসকে বলেন, সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে এর গ্রহণযোগ্যতার ফলে ই-জিপি’র হার বৃদ্ধি পেয়েছে, কারণ তারা কেনাকাটায় এমন একটি ব্যবস্থা চায় যেটি শারীরিক, মানসিক প্রভাব ও ঝামেলা মুক্ত।

তিনি বলেন, ই-জিপি’র সফলতা দেশে বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে ই-জিপি বাস্তবায়নে শীর্ষ পর্যায়ে রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালের ২ জুন ই-জিপি পোর্টালের উদ্বোধন করেন এবং প্রথম দরপত্রের আহ্বান করা হয় ২০১১ সালের ২৩ আগস্ট। ২০১১ সালের ২৫ জানুয়ারি পাবলিক প্রাইভেট এক্ট-২০০৬ এবং পাবলিক প্রকিউরমেন্ট রুল-২০০৮ এর আওতায় এর নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়।

ই-জিপি সিস্টেম ২০১২ সালে প্রথম কার্যকর করা হয় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুৎ বোর্ড, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ণ বোর্ড এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগে।

এ সকল প্রতিষ্ঠানে ১ কোটি টাকার বেশি কেনাকাটায়র ক্ষেত্রে শতভাগ ই-জিপি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। ২০২১ সালে শুরু হওয়া এতে সুফল আসায় এখন অন্যান্য সরকারী প্রতিষ্ঠানেও কেনাকোটায়ও এই পদ্ধতি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

সিপিটিইউ এর লক্ষ্য সম্পর্কে ফারুক হোসেন বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সকল সরকারী কেনাকাটায় স্থিতিশীলতা আনতে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এজন্য ডিআইএমএপিপিপি এর আওতায় আরো সংস্কারমূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৩শ’ টির মধ্যে ১২শ’ টি সরকারী কেনাকাটা প্রতিষ্ঠান ই-জিপি’র আওতায় এসেছে। এই পদ্ধতিতে এ পর্যন্ত ৪১ হাজার দরপত্র লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। ২০১১ থেকে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত মোট আহ্বান করা দরপত্রের ১ দশমিক ৩৫ শতাংশের বেশি দরপত্র ই-জিপি পদ্ধতিতে আহ্বান করা হয়েছে, যার মূল্য ১ লাখ ২৪ হাজার কোটি টাকা।

ই-জিপি ব্যবস্থা এসকল দরপত্র বিক্রি, বাছাই ও নবায়নের মাধ্যমে ২শ’ ১৯ কোটি টাকা আয় করেছে। এছাড়া প্রায় ৪৫ টি ব্যাংক এখন এই ব্যবস্থার আওতায় কেনাকাটা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ই-জিপি সেবা প্রদানে মিপিটিইউ ২৪ ঘন্টা হেল্প ডেস্ক চালু করেছে।

এই পদ্ধতিতে কেনাকাটায় প্রশিক্ষণে দেশে ৬০ জন প্রশিক্ষক রয়েছে এবং সক্ষমতা তৈরির জন্য ডিআইএমএপিপিপি এর আওতায় কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।




  এই বিভাগ থেকে আরও সংবাদ

   ১০৮ টাকা কেজিতে গরুর মাংস আমদানি
   ভোলার ভেদুরিয়ায় নতুন গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান
   দেশের বাজারে ফের বাড়ল সোনার দাম
   সেফটি নেট কর্মসূচী জন্য বিশ্ব ব্যাংক আরো ২৪৫ মিলিয়ন ডলার দিচ্ছে
   ফেব্রুয়ারি থেকে পেনশন অনলাইনে
   বৈশ্বিক ঋণ ২৩৩ ট্রিলিয়ন ডলার
   সামাজিক নিরাপত্তায় বিশ্ব ব্যাংক আরো ২৪৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদান করবে
   দেশে তৈরি হচ্ছে হাঙ্ক, কমবে দাম
   মোশাররফ হোসেন এনবিআরের নতুন চেয়ারম্যান
   এলএনজি আসছে এপ্রিলে
   আজ থেকে শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা
   ৩১ ডিসেম্বর ব্যাংকের লেনদেন বন্ধ
   পাঁচ মাসে আয়কর আদায় ২১ হাজার ৬৪৬ কোটি টাকা
   মাথাপিছু জিডিপিতে বাংলাদেশের পেছনে পাকিস্তান
   ডেপুটি গভর্নর নিয়োগে কমিটি
   বিটকয়েনে লেনদেন কতটা নিরাপদ?
   সার্ককে গতিশীল করে আঞ্চলিক বানিজ্য বাড়ানোর আহবান
   দেশীয় উপকরণ দিয়ে আমদানিবিকল্প শিল্প স্থাপনে অগ্রাধিকার দিচ্ছে সরকার-শিল্পমন্ত্রী
   বিশ্ব অর্থনীতি বাড়বে: জাতিসংঘ
   ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে
   কমছে স্বর্ণের দাম
   সরকারি টাকা রাখা যাবে লিজিং কোম্পানিতে
   বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশ এখন বিনিয়োগের জন্য চমৎকার স্থান – বাণিজ্যমন্ত্রী
   ১৫ ডিসেম্বর জয়পুরহাট চিনিকলে আখমাড়াই শুরু
   ওষুধ রফতানিকারক দেশ হিসেবে বিশ্বকে নেতৃত্ব দিবে বাংলাদেশ
   চালের দাম ৪০ টাকায় আনার চেষ্টা চলছে
   সেরা কনটেইনার অপারেটরের তালিকায় ৭ নম্বরে চট্টগ্রাম বন্দর
   বাংলাদেশে তৈরি পণ্য বিক্রি করছে ট্রাম্পের কোম্পানি
   রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে ব্যাংক
   ঢাকা স্টকে ৪৬১ কোটি টাকা ২ ঘন্টায় লেনদেন


  পুরনো সংখ্যা